গণতন্ত্র মানেই নির্বাচন নয়: অরুন্ধতী

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ৬ মার্চ ২০১৯ ইংরেজী, বুধবার: গণতন্ত্র মানেই নির্বাচন নয় বলে মনে করেন ভারতের প্রখ্যাত লেখক ও বিশিষ্ট মানবাধিকার কর্মী অরুন্ধতী রায়। তিনি বলেন, ‘গণতন্ত্র মানেই নির্বাচন না। কিছু মানুষের জন্য গণতন্ত্র রক্ষা করা হয়। আমি এ গণতন্ত্রের পক্ষে না।’ মঙ্গলবার সন্ধ্যায় রাজধানীর ধানমণ্ডি ২৭ নম্বরের মাইডাস সেন্টারে আয়োজিত এক আলোচনায় যোগ দিয়ে এসব কথা বলেন তিনি। ‘আটমোস্ট এভরিথিং’ শিরোনামে এই আলোচনার আয়োজন করা হয়। বুকার পুরস্কারজয়ী ভারতীয় এই লেখক বলেন, ‘ভোট এল, রাজনীতিবিদরা দুয়ারে এসে উন্নয়নের ফিরিস্তি দিয়ে ভোট চাওয়া শুরু করল। তোমাদের কাছে এই হলো গণতন্ত্র।’ ‘গোটা উপমহাদেশের চিত্র আসলে একই। গণতান্ত্রিক চর্চা ভিন্ন হলেও এই চিত্রটা কেমন করে যেন মিলে যায়। গণতন্ত্র এভাবেই নষ্ট হয়ে যায়।’ অরুন্ধতী বলেন, জাতীয়তাবাদের যে ধারণা প্রচলিত আছে, তা ধারণ করি না। আমি একজন ভ্রাম্যমাণ প্রজাতন্ত্রবাদী। এই মানবাধিকারকর্মী বলেন, আমি বাংলাদেশের মানুষের জন্য এসেছি। আমার এখানে পাঠক রয়েছে। তাদের সঙ্গে কথা বলার আগ্রহ ছিল। আমার দুটো সত্তা। লেখক সত্তা এবং কর্মী সত্তা। আমি দুটো সত্তাকেই ধারণ করি। আলোচনা মঞ্চে অরুন্ধতীর সঙ্গে ছিলেন আলোকচিত্রী শহিদুল আলম। শুরুতে একটি লিখিত বক্তব্য পড়েন অরুন্ধতী। এরপর শহিদুল আলমের প্রশ্নের উত্তর দেন তিনি। কথা বলেন নানা বিষয়ে।
গত ২৮ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হওয়া আন্তর্জাতিক আলোকচিত্র উৎসব ‘ছবিমেলা’য় যোগ দিতে অরুন্ধতী রায় সোমবার ঢাকায় আসেন। উৎসবের অংশ হিসেবে ‘আটমোস্ট এভরিথিং’ শিরোনামে আলোচনা অনুষ্ঠানে যোগ দেন তিনি।
রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন কমপ্লেক্স মিলনায়তনে বক্তৃতা অনুষ্ঠানটি হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সোমবার রাতে অনুষ্ঠানের অনুমতি পুলিশের পক্ষ থেকে প্রত্যাহার করা হয়। পরে ছবিমেলা জানায় মাইডাসে তার বক্তৃতা হবে। সন্ধ্যার পরে অরুন্ধতী রায় মাইডাস অডিটোরিয়ামে উপস্থিত হলে তাকে স্বাগত জানান আলোকচিত্রী ও ছবিমেলার অন্যতম আয়োজক শহিদুল আলম।

Leave a Reply

%d bloggers like this: