গণজাগরণ মঞ্চের শান্তিপূর্ণ হরতাল পালিত

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ৩ নভেম্বর: ব্লগার-প্রকাশক হত্যার প্রতিবাদে ও হত্যাকারীদের গ্রেফতারের দাবিতে চট্টগ্রামে গণজাগরণ মঞ্চের ডাকা অর্ধদিবস হরতাল পালিত হয়েছে। হরতাল চলাকালীন সময়ে কোথাও বড় ধরনের কোন অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। মঙ্গলবার (০৩ নভেম্বর) সকাল ৬টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত হরতাল পালন করেন গণজাগরণ মঞ্চের কর্মীরা। হরতালের সময় নগরীতে যান চলাচল স্বাভাবিক ছিল। দোকানপাট ব্যবসায় প্রতিষ্ঠাfullনের কার্যক্রমও স্বাভাবিকভাবে চলেছে। তবে নগরীর শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ ছিল। হরতালের কারণে মঙ্গলবারের জেএসসি ও জেডিসির পরীক্ষার সময়সূচি পরিবর্তন করে সকাল ১০টার পরিবর্তে দুপুর ২টায় নিয়ে আসা হয়। এছাড়া চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রথম বর্ষের অনুষ্ঠিত ভর্তি পরীক্ষা হরতালের আওতামুক্ত ছিল। নগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ কমিশনার (পশ্চিম) আরেফিন জুয়েল বলেন, হরতালে নগরীতে যান স্বাভাবিক ছিল। শান্তিপূর্ণ হরতাল পালন হয়েছে। প্রথমদিকে দুরপাল্লার যান চলাচল সীমিত থাকলেও বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে সবকিছু স্বাভাবিক হয়ে আসে। এদিকে হরতালের সমর্থনে নগরীর প্রেসক্লাব থেকে চেরাগী মোড়ে মিছিল নিয়ে যাওয়ার সময় জামালখানে যুদ্ধাপরাধের দায়ে দণ্ডিত মীর কাশেম আলীর কেয়ারি ভবনে ঢিল ছুঁড়ে জানালার কাঁচ ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় একজনকে আটক করলেও পরে তাকে ছেড়ে দেয় পুলিশ। নগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার (অপরাধ ও অভিযান) দেবদাস ভট্টাচার্য বলেন, কেয়ারি ভবনে ঢিল ছোঁড়ার ঘটনায় টহল পুলিশ একজনকে আটক করেছিল। পরে তাকে ছেড়ে দেয়া হয়। চট্টগ্রামে গণজাগরণ মঞ্চের সমন্বয়কারী শরীফ চৌহান বলেন, শান্তিপূর্ণভাবে হরতাল পালিত হয়েছে। আমাদের কর্মীরা মিছিল নিয়ে যাওয়ার সময় কে বা কারা কেয়ারি ভবনে ঢিল ছুঁড়েছে জানি না। তবে মিছিল থেকে কোন ঢিল ছোঁড়া হয়নি। এ ঘটনার সঙ্গে আমাদের কোন সম্পৃক্ততা নেই। তিনি বলেন, আমরা সরকারকে অবিলম্বে ব্লগার-প্রকাশক হত্যাকারীদের গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছি। সাধারণ মানুষও আমাদের এ দাবিকে সমর্থন করেছে। হরতালের সমর্থনে সকাল সাতটায় নগরীর আন্দরকিল্লা থেকে প্রবর্ত্তক মোড় পর্যন্ত বিভিন্ন পয়েন্টে মিছিল ও পথসভা অনুষ্ঠিত হয়। আন্দরকিল্লা, প্রেসক্লাব, চেরাগী মোড়, প্রবর্ত্তক, লালদীঘি মোড়ে দফায় দফায় এসব পথসভা অনুষ্ঠিত হয়।

Leave a Reply

%d bloggers like this: