খুলনায় বন্দুক যুদ্ধে বনদস্যু রাঙ্গা নিহত

নিউজগার্ডেন ডেস্ক : খুলনার পাইকগাছায় বন্দুক যুদ্ধে সুন্দরবনের রাঙ্গা বাহিনী প্রধান বনদস্যু আমির হোসেন রাঙ্গা (৪০) নিহত হয়েছে। রোববার দিনগত রাত ২টার দিকে খুলনার1পাইকগাছা উপজেলার সুন্দরবন সংলগ্ন কুমখালী এলাকায় পুলিশের সাথে এ বন্দুক যুদ্ধের ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থল থেকে ১টি বিদেশী পিস্তল, ২টি বন্দুক ও গোলাবারুদ উদ্ধার করা হয়েছে। লাশ ময়না তদন্তের জন্য খুমেক হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। বনদস্যু আমির হোসেন খুলনার রূপসা উপজেলার আলাইপুর গ্রামের সফিউদ্দীন সরদারের পুত্র। থানা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ঘটনার দিন দাকোপ থানায় দায়ের করা একটি অপহরণ মামলায় মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এস আই শহিদুল ইসলাম রাঙ্গা বাহিনীর প্রধান আমির হোসেন রাঙ্গাকে গ্রেপ্তার করে। পরে রাত ২টার দিকে ওসি (ডিবি) ত.ম. রোকনুজ্জামান, পাইকগাছা থানার ওসি সিকদার আককাছ আলী ও দাকোপ থানার ওসি মিজানুর রহমান খানের নেতৃত্বে পুলিশের একটি চৌকুশ দল পাইকগাছা উপজেলার গড়ইখালী ইউনিয়নের কুমখালী amirএলাকায় অস্ত্র উদ্ধারের অভিযানে গেলে বনদস্যুদের সাথে পুলিশের প্রায় ঘণ্টাব্যাপী বন্দুক যুদ্ধের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় বাহিনী প্রধান রাঙ্গা নিহত হয়। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে থানা পুলিশ বনদস্যুদের ব্যবহৃত ১টি বিদেশী পিস্তল, ২টি বন্দুক, ২ রাউন্ড পিস্তলের গুলি, ১ রাউন্ড এসএমজি খালি খোসা, ১২ রাউন্ড বন্দুকের কার্টুজ, ৭ রাউন্ড চায়না বন্দুকের গুলি ও ২টি ছুরি সহ বিপুল পরিমাণ গোলা বারুদ উদ্ধার করে। সোমবার সকালে নিহতের লাশ ময়না তদন্তের জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। এ ওসি সিকদার আককাছ আলী জানান, নিহত বনদস্যু আমির হোসেন সুন্দরবনের রাঙ্গা বাহিনীর প্রধান। জেলার বিভিন্ন থানায় তার বিরুদ্ধে অপহরণ সহ বনআইনে একাধিক মামলা রয়েছে। উল্লেখ্য, গত ৫ অক্টোবর ওসি সিকদার আককাছ আলীর নেতৃত্বে বন্দুক যুদ্ধে ১৩ বনদস্যু নিহতের ঘটনা ঘটে।

Leave a Reply

%d bloggers like this: