খাবারে রুচি বাড়ানোর জন্য কিছু কৌশল!

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০১৯ ইংরেজী, শুক্রবার: মুখে মোটেও রুচি নেই, কিছুই খেতে ইচ্ছে করে না। কী খেলে রুচি বাড়বে? এমন প্রশ্ন অনেকের। নানা কারণে অরুচি হয় আমাদের। গ্যাসের সমস্যা, কোষ্ঠকাঠিন্য, যকৃৎ বা কিডনি রোগ, জ্বরের বা সংক্রমণের পর, নানা ওষুধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায়, এমনকি মানসিক চাপ বা বিষণ্নতার কারণেও রুচি কমে যায়। গর্ভাবস্থায় ও বাড়ন্ত শিশুদের খাবারে অনীহা দেখা যায়। খাবারে রুচি বাড়ানোর জন্য কিছু কৌশল:
ক্স খাওয়ার শুরুতে বা মাঝখানে পানি পান করবেন না।
ক্স খাবারের স্বাদ, রং, গন্ধ মানুষের রুচিকে প্রভাবিত করে। তাই খাবার আকর্ষণীয় করে পরিবেশন করুন।
ক্স প্রতিদিন কিছু হালকা ব্যায়াম করুন বা হাঁটুন। বিপাকক্রিয়া বাড়বে ও খিদেও বাড়বে। কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করতে বেশি করে আঁশযুক্ত খাবার খান।
ক্স রোগবালাই, জ্বর সংক্রমণের পর কিছুদিন অরুচি থাকে। এ সময় পুষ্টিকর খাবার বেছে নিন। স্যুপ, ফলমূল, ফলের রস, মিল্কশেক, আমিষ ইত্যাদি খান।
ক্স গ্যাসের সমস্যা না থাকলে খাবারে রুচি বাড়াতে নানা ধরনের মসলা যোগ করা যায়। যেমন: গোলমরিচ, এলাচি, আদা, রসুন, ভিনেগার, লেবুর রস, নানা পদের আচার দিয়ে খাবার খেতে পারেন। এগুলো রুচিবর্ধক। কিন্তু গ্যাসের সমস্যা হলে একটু কম মসলা দিয়ে সহজপাচ্য খাবার খান।
ক্স ফাস্টফুড, কোমল পানীয়, চিপস জাতীয় খাবার এড়িয়ে চলুন। এগুলো রুচি কমিয়ে দেয় ও অনেকক্ষণ পর্যন্ত পেট ভরিয়ে রাখে।
ক্স অতিরিক্ত চা, কফি, ধূমপান খিদে কমিয়ে দেয়। দুগ্ধজাত খাবার, যেমন: পনির, দই ইত্যাদি রুচি বাড়ায়।
ক্স রুচি বাড়াতে কাঁচা আমলকী বা শুকনো আমলকীর গুঁড়ো পানিতে মিশিয়ে, আদাকুচি বা আদার রস গরম পানি বা চায়ের সঙ্গে, পুদিনাপাতা, এলাচিগুঁড়া বা চিনি দিয়ে খেতে পারেন। ডালিমের রস, কমলা বা মালটা, লেবু রুচি বাড়ায়। খাদ্যে ব্রকলি, টমেটো, ধনেপাতা যোগ করুন।
অরুচি দীর্ঘস্থায়ী হলে, ওজন হ্রাস, জ্বর, দুর্বলতা ইত্যাদি থাকলে অবশ্যই চিকিৎসকের শরণাপন্ন হবেন।

Leave a Reply

%d bloggers like this: