খাদ্যে ভেজাল ও দূষণ রোধকে সামাজিক আন্দোলনে রূপ দিতে হবে: মো. মাহফুজুল হক

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০১৯ ইংরেজী, শনিবার: নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান (অতিরিক্ত সচিব) মো. মাহফুজুল হক বলেছেন, ‘সব খাদ্য বিশুদ্ধ হলেই নিরাপদ হয় না। তাই খাদ্য মানব স্বাস্থ্যের জন্য যেমনটি বিশুদ্ধ হতে হবে তেমনটি নিরাপদও হতে হবে। বিজ্ঞানসম্মতভাবেই নিরাপদ খাদ্য তৈরি করতে হবে। খাদ্যে ভেজাল ও দূষণের বিষয়টি যথাযথ পরীক্ষা-নিরীক্ষার মাধ্যমে নিশ্চিত হয়েই পদক্ষেপ নিতে হবে। খাদ্যে ভেজাল ও দূষণ রোধকে সামাজিক আন্দোলনে রূপ দিতে হবে।’
গতকাল (৯ ফেব্রুয়ারি, শনিবার) সকাল সাড়ে ১০টায় চট্টগ্রামস্থ সাদার্ন ইউনিভার্সিটির সম্মেলন কক্ষে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের এগ্রো প্রোডাক্ট বিজনেস প্রমোশন কাউন্সিল (এপিবিপিসি) এবং বাংলাদেশ এগ্রো প্রসেসর’স এসোসিয়েশন (বাপা) আয়োজিত “বাংলাদেশের খাদ্য নিরাপদতা- সম্ভাবনা ও সমস্যা” শীর্ষক দুইদিনব্যাপি প্রশিক্ষণ কর্মসূচির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।
বাপা’র সভাপতি এ এফ এম ফখরুল ইসলাম মুন্সীর সভাপতিত্বে আয়োজিত অনুষ্ঠানে চট্টগ্রামের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ মাশহুদুল কবীর, বিএসটিআই চট্টগ্রামের আঞ্চলিক পরিচালক মো. সেলিম রেজা, চট্টগ্রাম চেম্বারের পরিচালক এম এ মোতালেব বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন।
বাপা’র সহ-সভাপতি ছৈয়দ মুহাম্মদ শোয়াইব হাছানের সঞ্চালনায় আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রশিক্ষক হিসেবে নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের সদস্য প্রফেসর ড. ইকবাল রৌফ মামুন ও ফুড সেফটি সিস্টেম স্পেশালিষ্ট ন্যাশনাল ফুড কনসালটেন্ট মো. ইমরুল হাসান এবং বাপার কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য শহিদুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি মো. মাহফুজুল হক আরো বলেন, ‘যথাযথ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে খাদ্য উৎপাদন, আমদানি, প্রক্রিয়াকরণ, বিক্রয়, বিপণন থেকে শুরু করে খাবার টেবিলে যাওয়ার পর্যন্ত সমন্বয়ের মাধ্যমে খাবারকে নিরাপদ করতে হবে। বিজ্ঞানসম্মতভাবেই নিরাপদ খাদ্য তৈরি করতে হবে। খাদ্যে ভেজাল ও দূষণের বিষয়টি যথাযথ পরীক্ষা-নিরীক্ষার মাধ্যমে নিশ্চিত হয়েই পদক্ষেপ নিতে হবে। এগ্রো প্রসেসর প্রতিষ্ঠানগুলোকে নিরাপদ খাদ্য আইন মেনেই খাদ্য প্রস্তুত করতে হবে। এজন্য সবাইকে সচেতন করতে হবে।’
স্বাগত বক্তব্যে সভাপতি এ এফ এম ফখরুল ইসলাম মুন্সী বলেন, ‘সরকার নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিত করতে যুগান্তকারী নানাবিধ পদক্ষেপ নিয়েছেন। খাদ্য প্রস্তুতকারী উদ্যোক্তাদের সচেতন হবে। খাদ্য প্রস্তুত প্রক্রিয়ায় কর্মরতদের প্রশিক্ষিত করতে হবে। খাদ্যের মান রক্ষায় ভোক্তাদেরও সচেতনতা জরুরি।’

Leave a Reply

%d bloggers like this: