ক্লাসিকোর আগে বার্সার “মেসি-চুরি”!

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ২০ নভেম্বর: রাত পোহালে ক্লাসিকোর রব পড়ে যাবে। নিঃশ্বাস দূরত্বে ম্যাচ থাকলেও দলের সেরা খেলোয়াড় মেসি সম্পর্কে চূড়ান্ত কোনো তথ্য দিচ্ছে না বার্সেলোনা। রিয়ালের সঙ্গে অনেকটা লুকোচুরি খেলছে তারা, যাকে বলা হচ্ছে ‘মেসি-চুরি’।masi
লিওনেল মেসি ফিট কি ফিট না? এল ক্লাসিকোতে তিনি নামবেন কি নামবেন না? এই প্রশ্ন যখন সব মহলে তখন ‘হকনক’ বলছেন বার্সা কোচ। এক দিকে যেমন বলছেন, ‘মেসি যে কোনও দলকেই শক্তিশালী করার ক্ষমতা রাখে।’ আবার সেই এনরিকেই পরে যোগ করছেন, ‘কোনও ফুটবলারকে নিয়ে ঝুঁকি নেব না। একশো শতাংশ ফিট হলে তবেই নামবে।’
স্প্যানিশ প্রচারমাধ্যমের মতে, এলএম টেনকে নিয়ে বার্সা কোচের এই স্ববিরোধী মানসিকতা আসলে ক্লাবের চাল। রিয়াল কোনোক্রমে যাতে মেসির ব্যাপারে কিছুর আন্দাজ না পায় সেই কারণেই নাকি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা। একই কারণে নাকি মেসিকে নিয়ে বিভ্রান্তি ছড়ানোর চেষ্টা করেছেন লুইস সুয়ারেজও।
মেসির ‘প্রিয় বন্ধু’ যেমন এক দিকে খুশি তাঁর সতীর্থের অনুশীলনে ফেরা নিয়ে, আবার আশঙ্কাও করছেন মেসির চোট বেশি গুরুতর হওয়ার সম্ভাবনা আছে। ‘মেসিকে অনুশীলনে যথেষ্ট চনমনে দেখিয়েছে। ক্লাসিকোয় খেলবে কি না সেটা কোচের উপর। কিন্তু ওকে অনুশীলনে দেখে ভাল লাগল,’ বলেন সুয়ারেজ।
মেসিকে একশো শতাংশ ফিট সার্টিফিকেট দেওয়ার পরেও সতর্ক করে দিচ্ছেন, ‘মেসির চোটটা এমন যেটা নিয়ে সাবধান না হলে আরও মুশকিল হতে পারে।’
শোনা যাচ্ছে, মেসির ক্লাসিকো ভবিষ্যৎ নির্ভর করছে ফিটনেস পরীক্ষার ওপর। শনিবার ম্যাচ। তার ২৪ ঘণ্টা চব্বিশ ঘণ্টা আগে, অর্থাৎ শুক্রবার ক্লাব ডাক্তারদের সামনে ফিটনেস পরীক্ষা নেওয়া হবে মেসির। যার পরে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে রাজপুত্র খেলবেন কি না। ক্লাসিকো খেলার ছাড়পত্র পেলেও প্রথম দলে জায়গা হয়তো পাবেন না মেসি। রিজার্ভ বেঞ্চেই বসতে হবে। পরের দিকে মাঠে নামতে পারেন। সূত্র: ঢাকাটাইমস

Leave a Reply

%d bloggers like this: