কারাগারে মানবিক বিপর্যয়ের আশঙ্কা বিএনপির

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ১৬ নভেম্বর: বিরোধী দলের নেতা-কর্মীদের গণগ্রেফতারে সারাদেশের কারাগারে মানবিক বিপর্যয় ঘটতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন বিএনপির মুখপাত্র সম্পাদক ড. আসাদুজ্জামান রিপন।bnp
ড. রিপন বলেন, অন্যান্য দিনের মতো রোববারও নতুন করে চট্টগ্রামে ২৯২ জন, রংপুরে ৭১, চুয়াডাঙ্গায় ৫ জন, সাতক্ষীরায় ৯ জন, নরসিংদীর রায়পুরা, গাজীপুরের কালিগঞ্জ, চাঁপাইনবাবগঞ্জ গোমস্তাপুর, ঝিনাইদহ সদরে প্রভৃতি জেলায় ৫৫ জন, নোয়াখালীতে ৯ জন নেতা-কর্মীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।
আমরা দেখছি, প্রতিদিন সরকার বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের গ্রেফতার করে কারাগারে ভরে ফেলছে। কারাগারগুলো ধারণ ক্ষমতায় বাইরে চলে গেছে।
যেভাবে বিরোধী দলের নেতা-কর্মীদের গ্রেপ্তার করে রাখা হচ্ছে, তাতে করে কারাগারগুলোতে একটি মানবিক বিপর্যয়ের ঘটনা অত্যাসন্ন বলে আমরা মনে করছি। নয়া পল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি একথা বলেন।
দেশের বর্তমান পরিস্থিতিকে সংকটজনক অভিহিত করে আসাদুজ্জামান রিপন বলেন, সরকার বিরোধী দলের বিরুদ্ধে কর্দয ভাষায় কথা বলেছে। তারা নানা প্রোপাগাণ্ডা চালাচ্ছে। ইনুদের সাথে রেখে ক্ষমতার হিৎসা দিয়ে সরকার ২০১৯ সাল পর্যন্ত সংসদ বহাল রাখতে চান, ক্ষমতায় থাকতে চান- এটা দিবাস্বপ্ন ছাড়া আর কিছুই নয়।
তিনি বলেন, জনগণ ভোট দিতে না পারায় ক্ষুব্ধ ও অসন্তুষ্ট। সুতরাং মানুষের ক্ষোভ প্রশমনের জন্য সরকারের উচিত হবে যেভাবে ক্ষমতায় থাকার দিবাস্বপ্ন দেখছেন, তা বাদ দিয়ে জনগণের রায় নতুন করে নেবেন। দেশে একটি অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন দেবেন।
বিএনপি সন্ত্রাসী দল- ক্ষমতাসীনদের এই অভিযোগ খণ্ডন করে তিনি বলেন, বর্তমান সরকার বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতা-কর্মীদের বিভিন্ন সময়ে গ্রেপ্তার করছেন, তাদের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছেন যে বিএনপি সন্ত্রাসের সাথে জড়িত। আমাদের দল স্পষ্টভাষায় বলে আসছে যে, আমরা গণতান্ত্রিক পন্থার রাজনৈতিক দল। আমরা উগ্রবাদ ও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে।
সম্প্রতি রাজধানী ঢাকা ও রংপুরে দুইজন বিদেশি নাগরিক হত্যাকাণ্ডের সাথে বিএনপিকে জড়িয়ে ক্ষমতাসীনদের বক্তব্যের নিন্দা জানিয়ে রিপন বলেন, আমরা স্পষ্টভাষায় বলতে চাই, জঘন্য কর্মকাণ্ডের সাথে আমাদের দল কখনো জড়িত হতে পারে না।
তিনি বলেন, এমএ কাইয়ুমের ভাই এমএ মতিনকে গ্রেফতার করা হয়েছে অনেক আগে। অন্ততঃপক্ষে দুই সাপ্তাহ পরে তাকে আদালতে হাজির করে বলা হয়েছে, মতিনকে বেনাপোল সীমান্তের কাছ থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাকে দিয়ে জোর করে নির্যাতনের মুখে যাতে বিএনপির কারো নাম উচ্চারণ করানো যায় এরকম একটি ষড়যন্ত্র চলছে। আমরা এই ধরনের ষড়যন্ত্র থেকে সরকারকে বিরত থাকার আহবান জানাচ্ছি।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় নেতা আবদুস সালাম আজাদ, আবদুল লতিফ জনি, শামীমুর রহমান শামীম, আসাদুল করীম শাহিন, ফজলুর রহমান, আবুল কালাম আজাদ প্রমূখ নেতৃবৃন্দ। সূত্র: শীর্ষ নিউজ

Leave a Reply

%d bloggers like this: