কক্সবাজারে পাওনা টাকা নিয়ে দু’গ্র“পের সংঘর্ষ

কক্সবাজার প্রতিনিধি : কক্সবাজার সদরের পোকখালীতে কিছু অসাদু দালাল মালয়েশিয়ায় sangarshaনিয়ে যাওয়ার জন্য শত শত যুবক’র নিকট থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। দালাল চক্রটি ওই যুবকদের প্রলোভনে ফেলে মালয়েশিয়া যাওয়ার জন্য প্রলুব্দ করে ফলে অনেকে ভিটা মাটি বিক্রি করে দালাল চক্রের কাছে টাকা দিয়ে সর্বস্ব হারিয়ে পথে বসার উপক্রম হওয়ায় দালালদের নিকট দেওয়া টাকা ফেরত চাওয়াকে কেন্দ্র করে দফায় দফায় সংঘর্ষ, গুলি বর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। এতে উভয় পক্ষের ৬ জন গুলিবিদ্ধ ও ছুরিকাঘাতে আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। বর্তমানে আহতরা বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। সংঘটিত ঘটনায় ২জনকে বাজার এলাকা থেকে আটক করে পুলিশের কাছে সোপর্দ করেছে প্রতিপক্ষের লোকজন। ঘটনাটি ঘটেছে ২০ ফেব্রুয়ারী বিকাল ৩ টায় কক্সবাজার সদরের পোকখালী ইউনিয়নের উত্তর নাইক্ষ্যংদিয়া এলাকায়। অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, পোকখালী ইউনিয়নের উত্তর নাইক্ষ্যংদিয়া এলাকার জনৈক মোহাম্মদ হোসেন প্রকাশ হোসেন ফকির গতবছর একই এলাকার আবদু শুক্কুরের পুত্র ইউনুছকে চুক্তির ভিত্তিতে মালেশিয়া পাঠায়। দীর্ঘদিন ইউনুছের কোন খোজ খবর না পাওয়ায় তার আত্মীয়-স্বজন উক্ত হোসেন ফকিরকে চাপ সৃষ্টি করতে থাকে। এক পর্যায়ে ইউনুছ মালেশিয়ায় কোন কাজকর্ম না পেয়ে নিরূপায় হয়ে ফিরে আসে। চুক্তি অনুযায়ী টাকা ফেরত না দেওয়ায় হোসেন ফকির ও ইউনুছের ভাই আনোয়ারের সাথে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে হোসেন ফকিরের নেতৃত্বে ৪/৫ জন দুর্বৃত্ত আনোয়ারকে লক্ষ্য করে ৪/৫ রাউন্ড গুলি ছুঁড়ে। এতে তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে গুরুতর জখম হয়। খবর পেয়ে তার আত্মীয় স্বজনরা এগিয়ে আসলে তার মা ছারা খাতুনকেও মারধর করা হয় বলে আনোয়ারের মামা ইসমাইল জানায়। এসময় উভয়পক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটলে আনোয়ারের পক্ষের কয়েকজন লোক হোসেন ফকির ও তার বাবা তৈয়ম গোলালকে উপর্যুপরী ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়। এতে হোসেন ফকিরের শরীরের বিভিন্ন স্থানে ৭/৮টি জখম রয়েছে বলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এলাকার কয়েক ব্যক্তি জানায়। এরা বর্তমানে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বলে পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে। খবর পেয়ে ঈদগাঁও পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের একদল পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এ ব্যাপারে ঈদগাঁও পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের উপ-পরিদর্শক মিনহাজ মাহমুদ ভুঁইয়া জানান, সৃষ্ঠ ঘটনায় মামলা করা হলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এ রিপোর্ট লিখা পর্যন্ত আনোয়ারের মা ছায়েরা খাতুন বাদী হয়ে অভিযোগ দায়ের করেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*