ওয়েলস-বাংলাদেশ চেম্বার প্রতিনিধিদলের সাথে চিটাগাং চেম্বারের মতবিনিময়

নিউজগার্ডেন ডেস্ক : বাংলাদেশে সফররত ওয়েলস্ সরকার এবং ওয়েলস্-বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স’র ৩০ সদস্য বিশিষ্ট উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন প্রতিনিধিদলের সাথে দি চিটাগাং চেম্বার অব Photo(Wales Chamber)কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রি’র পরিচালকমন্ডলীর এক মতবিনিময় সভা ২৯ জানুয়ারী সন্ধ্যায় অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন চিটাগাং চেম্বার সভাপতি মাহবুবুল আলম। এ সময় প্রতিনিধিদলের নেতা ও ওয়েলস্-বাংলাদেশ চেম্বারের চেয়ারম্যান দিলাবর এ হোসাইন, বিশেষ প্রতিনিধি কেভিন ব্রেনান এমপি, ওয়েলস্ গভর্ণমেন্টের ট্রেড এন্ড ইনওয়ার্ড ইনভেস্টমেন্ট’র ডেপুটি ডাইরেক্টর মাইক নিডা, ব্রিটিশ হাইকমিশন এর হেড অব ট্রেড এন্ড ইনভেস্টমেন্ট রুজিনা হাসান, চেম্বার পরিচালকৃবন্দ মাজহারুল ইসলাম চৌধুরী, cমাহফুজুল হক শাহ, এম. এ. মোতালেব, ছৈয়দ ছগীর আহমেদ, জহিরুল ইসলাম চৌধুরী (আলমগীর), এ. কে. এম. আকতার হোসেন, কামাল মোস্তফা চৌধুরী, মোঃ অহীদ সিরাজ চৌধুরী (স্বপন), মোঃ জহুরুল আলম, আলহাজ্ব মোঃ সিরাজুল ইসলাম, এম. এ. ছালামসহ প্রাক্তন চেম্বার পরিচালকদ্বয় মোহাম্মদ হাবিবুল হক ও ওয়াসিউর রহমান চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন। চেম্বার সভাপতি মাহবুবুল আলম বাংলাদেশ ও যুক্তরাজ্যের বিদ্যমান সম্ভাবনাসমূহ কাজে লাগিয়ে দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য বৃদ্ধি করা সম্ভব বলে মন্তব্য করেন। তিনি চিটাগাং চেম্বারের আবেদনের প্রেক্ষিতে মীরসরাইয়ে ঢাকা-চট্টগ্রাম চার লেন হাইওয়ে সংলগ্ন ৬,৬৫০ একর এবং আনোয়ারায় কর্ণফুলী নদীর তীরে ৬১১ একর ভূমি সম্বলিত বাস্তবায়নাধীন স্পেশাল ইকনোমিক জোনে ভারী ও মাঝারি শিল্প স্থাপনের জন্য সকল সুবিধা বিদ্যমান উল্লেখ করে ফার্মাসিউটিক্যালস, সিরামিক্স, চামড়া ও চামড়া জাত পণ্য, প্লাষ্টিক, ফার্নিচার ও কৃষি খাতসহ সম্ভাবনাময় বিভিন্ন খাতে সরাসরি বা যৌথভাবে বৈদেশিক বিনিয়োগের আহবান জানান। প্রতিনিধিদল নেতা দিলাবর এ হোসাইন বলেন ওয়েলস্ সরকার এবং ওয়েলস্-বাংলাদেশ চেম্বারের অতীত বাণিজ্য প্রতিনিধিদলের সফর ফলপ্রসূ ছিল বিধায় এ বছর ওয়েলস্ সরকারসহ আরো অধিক সেক্টরের সমন্বয়ে বাণিজ্য প্রতিনিধিদল নিয়ে চট্টগ্রাম সফর করা হচ্ছে। এ সফরের ফলে চট্টগ্রামসহ বাংলাদেশের সাথে ওয়েলস্ সরকারের বাণিজ্য বৃদ্ধির পাশাপাশি দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক আরো দৃঢ় হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন। বিশেষ প্রতিনিধি কেভিন ব্রেনান এমপি বাংলাদেশের মানবসম্পদকে এদেশের বৃহত্তম শক্তি ও ভবিষ্যত উল্লেখ করে যথাযথ শিক্ষা ব্যবস্থা ও প্রশিক্ষণের মাধ্যমে এ সম্পদের উন্নয়ন সম্ভব বলে অভিমত ব্যক্ত করেন। ওয়েলস্ গভর্ণমেন্টের পক্ষ থেকে প্রথমবারের মত বাংলাদেশ সফরে আসা ট্রেড এন্ড ইনওয়ার্ড ইনভেস্টমেন্ট’র ডেপুটি ডাইরেক্টর মাইক নিডা এদেশের মানুষের আতিথেয়তার প্রশংসা করেন এবং দু’দেশের মাঝে বাণিজ্যিক সম্ভাবনা চিহ্নিত করনে তারা কাজ চালাচ্ছে বলে জানান। ব্রিটিশ হাইকমিশন এর হেড অব ট্রেড এন্ড ইনভেস্টমেন্ট রুজিনা হাসান চট্টগ্রামকে গ্লোবাল ইকনোমির গেটওয়ে আখ্যায়িত করে অত্র অঞ্চলের সার্বিক ব্যবসা-বাণিজ্য ত্বরান্বিত হবে উল্লেখ করেন। উল্লেখ্য, প্রতিনিধিদলটি উক্ত দিন চট্টগ্রাম কাস্টম কমিশনার, চট্টগ্রাম বন্দর ও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের সাথেও সাক্ষাত করেন।

Leave a Reply

%d bloggers like this: