এলপিজির দাম নিয়ন্ত্রণে নীতিমালা চূড়ান্ত

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ২৫ জানুয়ারী ২০১৭, বুধবার: তরল পেট্রোলিয়াম গ্যাস এলপিজির দাম নিয়ন্ত্রণে নীতিমালা চূড়ান্ত করেছে মন্ত্রণালয়। সরকারের অনুমতি পেলে এক মাসের প্রজ্ঞাপন আকারে তা জারি করা হবে বলে জানিয়েছেন জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ।
তবে নীতিমালা করে দাম নিয়ন্ত্রণে এখাতে নেতিবাচক প্রভাবের আশঙ্কা আমদানি ও বিপণন সংশ্লিষ্টদের। দেশে তরল পেট্রোলিয়াম গ্যাস এলপিজির চাহিদা প্রায় ১০ লাখ মেট্রিক টন। সরকারি-বেসরকারি পর্যায়ে আমদানির পরও ঘাটতি ৫ লাখ মেট্রিক টনের বেশি।
এদিকে অদূর ভাবিষ্যতে গ্যাসের স্বল্পতার কথা ভেবে এলপিজিতে গুরুত্ব দিচ্ছে সরকার। পাশাপাশি পাইপ লাইনে আবাসিক গ্যাস সংযোগ না দেয়ায় প্রতিদিনই বাড়ছে চাহিদা।
৪০ প্রতিষ্ঠানকে এলপিজি আমদানি, উৎপাদন ও বাজারজাতের লাইসেন্স দেয়া হলেও কাজ করছে ১০ থেকে ১২টি। নীতিমালা না থাকায় এসব বিষয়ে নিয়ন্ত্রণও ছিলো না সরকারের। অবশেষে চূড়ান্ত হয়েছে নীতিমালা। আর এর আলোকে সাড়ে ১২ কেজি সিলিন্ডারের দাম নেমে আসছে আটশো টাকার নিচে।
তবে বিশেজ্ঞদের দাবি, এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনের মাধ্যমে জনগণকে সম্পৃক্ত করে নীতিমালা প্রণয়ন হলে দাম নেমে আসতো পাঁচশো টাকার নিচে।
আর নীতিমালা বিনিয়োগ-বান্ধব না হলে এলপিজি খাত ক্ষতিগ্রস্তের শঙ্কা বেসরকারি উদ্যোক্তাদের।
এলপিজি জনপ্রিয় করতে দামের পাশাপাশি সিলিন্ডারে মান নিয়ন্ত্রণেও সরকারকে কঠোর হওয়ার পরামর্শ ব্যবহারকারীদের। তথ্যসূত্র : ইনডিপেন্ডেন্ট টিভি

Leave a Reply

%d bloggers like this: