এমেকাও প্রেমের প্রস্তাব পান!

নিউজগার্ডেন ডেস্ক : এমেকা ডার্লিংটন। নাইজেরিয়ান ফরোয়ার্ড। শেখ জামালের প্রাণ। ক্লাবটির মাঠে চলছে বাংলাদেশ জাতীয় দলের প্রস্তুতি ক্যাম্প। গতকাল সাইড লাইনে বসে সতীর্থদের প্রাকটিস দেখছিলেন তিনি। সেখানেই পরিবার, প্রেম-ভালোবাসা আর বাংলাদেশের ফুdscটবল নিয়ে কথা হয় তার সঙ্গে। এমেকাকে প্রথম দেখায় মনে হবে যেন খুব সরল-সহজ। হাত বাড়ালে ‘বন্ধু’ বলে সম্বোধন করেন। কথা বলার সময় অকারণেও হাসতে থাকেন। তাই বলে কিন্তু ভোলাভালা নন। সেটা বোঝা যায় তার পেশাদারিত্বের বয়ান শুনলে। সম্প্রতি বাংলাদেশ জাতীয় দলের কোচ বাফুফেকে প্রস্তাব দিয়েছেন, দলে বিদেশিদের অন্তর্ভুক্ত করানোর। এমেকা এদেশের জাতীয় দলে খেলতে চান কি না, জানতে চাইলে ভাঙা ভাঙা ইংরেজিতে বলেন, ‘বাংলাদেশকে আমি ভালোবাসি। আপনাদের এই দেশটা সত্যি অনেক সুন্দর। যদি জাতীয় দলে খেলার সুযোগ আসে, আর আমার চাহিদা যদি কর্তৃপক্ষ মেনে নেয়, তবেই কেবল এটা সম্ভব।’ শেখ জামালে কতদিন খেলার ইচ্ছা আছে? প্রশ্নটা করতেই দার্শনিক বনে যান এমেকা, ‘এখানে তো অনেকদিন কাটিয়ে দিলাম। আপনি চাইলেই একটা যায়গায় সারা জীবন থাকতে পারবেন না।’ ‘গত মৌসুমে ভারতের ইস্টবেঙ্গল থেকে প্রস্তাব এসেছিল। কিন্তু চাহিদার সঙ্গে সে প্রস্তাব মেলেনি। বাংলাদেশ থেকেও বেশ কয়েকটি ক্লাব আমাকে পেতে চায়।’ দাবি করেন এমেকা। আবাহনী কিংবা অন্য কোনো ক্লাব থেকে কখনো প্রস্তাব এসেছে কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে ‘পেশাদার’ এমেকা কারো নাম না উচ্চারণ করে বলেন, ‘হ্যাঁ এসেছিল। আমি পেশাদার। খেলতেই চাই। সেই সঙ্গে অর্থ। অন্য ক্লাবগুলো যদি ভালো টাকা দেয়, তাহলে যাব। না দিলে নাই।’ কথা বলতে বলতে ফুটবল ছেড়ে জানতে চাওয়া হয় এমেকার পারিবারের কথা। জানালেন, সদ্য বিয়ে করেছেন। গত ডিসেম্বরে। স্ত্রীকে ভীষণ মিস করেন। জীবনের নানা প্রতিঘাত পার করে ফুটবলে ক্যারিয়ার গড়েছেন। পরিবারের অন্য কেউ এটা না চাইলেও বড় ভাই সব সময় চাইতেন এমেকা ফুটবলার হোক। হালের ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো কিংবা মেসি তার আদর্শ নন। ছোটবেলা থেকে বরং ব্রাজিলের কিংবদন্তি স্ট্রাইকার রোনালদোর মতো হতে চেয়েছেন এই নাইজেরিয়ান। শরীরে তার কালোর ছটা। মন প্রেমিক। বিয়ের আগে নিজদেশে বেশ কয়েকবার প্রেমে পড়েছেন। বাংলাদেশেও ফেসবুকে কেউ কেউ নাকি তাকে বলেন, ‘আই লাভ ইউ এমেকা।’ ভালোবাসা নিবেদনকারীদের মধ্যে কয়েকজন অভিনেত্রী আছেন বলেও জানালেন তিনি। তবে ওই পর্যন্তই। কখনো ডেটিং কিংবা ফোনে কথা হয়নি। ‘বিদেশের মাটিতে এসব সম্ভব না। হয়তো তারা শেখ জামাল কিংবা আমার খেলা পছন্দ করেন, তাই ফেসবুকে এভাবে প্রতিক্রিয়া জানান।’ বলেন এমেকা। সম্প্রতি ঢাকার ফুটবলে বিতর্কের জন্ম দিয়েছেন এই ‘ব্লাক ডায়মন্ড’। দর্শকদের দিকে ঢিল ছুঁড়েছেন। গালিও দিয়েছেন। এমেকা বললেন, এই স্মৃতি তিনি ভুলে যেতে চান। সূত্র : ঢাকাটাইমস

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*