এটিএম বুথ থেকে টাকা চুরি: বিদেশি চক্র

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ১৫ ফেব্র“য়ারী: এটিএম বুথ থেকে ‘স্কিমিং ডিভাইস’-এর মাধ্যমে গ্রাহকদের ডেবিট কার্ড ডাটা সংগ্রহ করে টাকা চুরির ঘটনায় বিদেশি চক্র জড়িত বলে প্রাথমিক তদন্তে জানা গেছে। যেসব বুথ থেকে টাকা চুরি হয়েছে পুলিশ ইতিমধ্যে সেসব বুথ থেকে টাকা উত্তোলনকারীর ছবি ও সিসিটিভি ক্যামেরায় ধারণকৃত ভিডিও ফুটেজ সংগ্রহ করেছে। এতে টাকা উত্তোলনকারী হিসেবে একাধিকatm বিদেশি নাগরিককে দেখা গেছে। পুলিশ কর্মকর্তারা ধারণা করছেন, বিদেশি কোনো সংঘবদ্ধ চক্র টাকা চুরির ঘটনায় জড়িত। তাদের শনাক্ত ও গ্রেপ্তারে অভিযান শুরু করেছে পুলিশ। বিদেশি এসব নাগরিক যাতে দেশ ত্যাগ করতে না পারে সেজন্য তাদের ছবি বিভিন্ন স্থল ও আকাশপথের ইমিগ্রেশন কার্যালয়ে পাঠিয়ে দেয়ার প্রক্রিয়া চলছে। এদিকে টাকা চুরির একাধিক ঘটনার পর বেসরকারি ব্যাংকগুলো আন্তঃব্যাংক এটিএম বুথে লেনদেন বন্ধ করে দিয়েছে। ব্যাংকগুলোর পক্ষ থেকে তাদের গ্রাহকদের নিজ নিজ ব্যাংকের এটিএম বুথ থেকে টাকা উত্তোলনের পরামর্শ দেয়া হয়েছে। এছাড়া, পিন কোড ও পাসওয়ার্ড পরিবর্তনের জন্যও অনুরোধ করা হয়েছে।
গত শুক্রবার রাজধানীর বনানী ও মিরপুর এলাকার বিভিন্ন বুথ থেকে কয়েকটি বেসরকারি ব্যাংকের টাকা খোয়া যায়। গ্রাহকের কাছে ডেবিট কার্ড ও পাসওয়ার্ড গচ্ছিত থাকলেও তাদের মোবাইল ম্যাসেজে টাকা উত্তোলন হওয়ার নোটিফিকেশন আসে। বিষয়টি নিয়ে ভুক্তভোগী গ্রাহকরা নিজ নিজ ব্যাংক কর্তৃপক্ষকে জানালে বিষয়টি সবার নজরে আসে। পরে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ প্রাথমিক তদন্তে ঘটনার সত্যতা পায়। এর প্রেক্ষিতে গত শুক্রবার ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক লিমিটেড (ইউসিবিএল)-এর পক্ষ থেকে বনানী থানায় তথ্য-প্রযুক্তি আইন ও পেনালকোডের ধারায় একটি মামলা দায়ের করা হয়। ইউসিবিএলের পক্ষে মামলাটি দায়ের করেন ব্যাংকের হেড অব ফ্রড কন্ট্রোল অ্যান্ড ডিসপুট ম্যানেজমেন্ট ও কার্ডস, ব্রাঞ্চেস কন্ট্রোল অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট ডিভিশন কর্মকর্তা মাহবুব- উল ইসলাম খান।
মামলার তদন্ত তদারক কর্মকর্তা পুলিশের গুলশান বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) মোস্তাক আহমদ বলেন, বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে তদন্ত করা হচ্ছে। ব্যাংক কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে কিছু তথ্য ও ছবি পাওয়া গেছে। সেগুলো আমলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। ডিসি বলেন, ছবিতে বিদেশি নাগরিকের ছবি দেখা গেছে। এ কারণে এই চক্রটি বিদেশি বলে ধারণা করা হচ্ছে। এরা যাতে দেশ থেকে চলে যেতে না পারে সে জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।
তদন্ত সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, এটিএম বুথ থেকে টাকা চুরির এই চক্রটি বিদেশি। সিসিটিভি ফুটেজ বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে আফ্রিকান কোনো দেশের নাগরিক স্কিমিং ডিভাইসের মাধ্যমে ক্লোন কার্ড তৈরি করে তা দিয়ে টাকা তুলছে। তদন্ত সংশ্লিষ্টদের ধারণা, এই চক্রের সঙ্গে দেশীয় লোকজনও জড়িত বলে তারা ধারণা করছেন। সূত্র: শীর্ষ নিউজ

Leave a Reply

%d bloggers like this: