‘উৎসবের আনন্দ বদলে গেল বিষাদে’

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ১৮ আগস্ট ২০১৯ ইংরেজী, রবিবার: আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে শিয়া অধ্যূষিত এক এলাকায় একটি বিয়ে বাড়িতে পুরুষদের কক্ষে এক ব্যক্তি আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণ ঘটালে কমপক্ষে ৬৩ জন নিহত ও ১৮০ জন আহত হয়েছে। মৃতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। ওয়েডিং হলের ভিতর কী ভাবে এমন বিস্ফোরণ ঘটল, তা নিয়ে ধন্দে পুলিশ। আফগানিস্তানের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র নুসরত রহিমি সংবাদ সংস্থাকে জানিয়েছেন, বিস্ফোরণের কারণ নিয়ে ধোঁয়াশা রয়েছে। তবে, তালিবান ও ইসলামিক স্টেটকে সন্দেহের ঊর্ধ্বে রাখা হচ্ছে না।


সরকারি মুখপাত্রের ধারণা, কাবুলে সক্রিয় এই দুই জঙ্গি সংগঠনের লোকজন বিস্ফোরণের ঘটনায় জড়িয়ে থাকতে পারে। জানা গিয়েছে, শনিবারের এই বিয়েবাড়িতে সংখ্যালঘু শিয়া হাজারা সম্প্রদায়ের লোকজনই জড়ো হয়েছিলেন। ওই ওয়েডিং হলে শতাধিক লোকজন নিমন্ত্রিত ছিলেন। চলছিল বিয়েবাড়ির অনুষ্ঠান৷ হইচই, খাওয়া-দাওয়া ঠিক যেন উৎসবের মেজাজ। সঙ্গীতের মূর্ছনা ভেসে উঠছিল চারপাশ। কিন্তু মুহূর্তের মধ্যে সব শেষ৷ উৎসবের আনন্দ বদলে গেল বিষাদে৷ আত্মঘাতী ওই বোমাবিস্ফোরণে হতাহতরা মাটিতে লুটিয়ে পড়লে হৃদয়বিদারক দৃশ্যের অবতারণা হয়। বেশিরভাগ আমন্ত্রিতই মাটিতে লুটিয়ে পড়েন৷ আতঙ্কে দৌড়াদৌড়িও শুরু করেন অনেকেই৷ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় উদ্ধায় উদ্ধারকারী দল৷ জখম আমন্ত্রিতদের উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়৷ চিকিৎসকরা প্রথমেই জানিয়ে দেন কুড়িজন মারা গিয়েছেন৷ এরপর একে একে মৃত্যুর খবর আসতে থাকে৷ শেষ পাওয়া খবর অনুযায়ী মোট ৬৩ জনের মৃত্যু হয়েছে৷ আহতও হয়েছেন অন্তত শতাধিক৷ তাঁদের প্রত্যেকের অবস্থা অত্যন্ত সংকটজনক৷
শনিবার রাতের কাবুলের ওই বিয়েবাড়িতে অন্তত ১০০০জন আমন্ত্রিত ছিলেন৷ বিয়েবাড়িতে সংখ্যালঘু শিয়া হাজারা সম্প্রদায়ের লোকজনই জড়ো হয়েছিলেন। বিয়েবাড়ির ভিতর কীভাবে এমন বিস্ফোরণ ঘটল, তা ঠাহর করতে পারছে না পুলিশ। আফগানিস্তানের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের মুখপাত্র নুসরত রহিমি বলেন, ‘‘বিস্ফোরণের কারণ নিয়ে ধোঁয়াশা রয়েছে। তালিবান ও ইসলামিক স্টেট জড়িত কি না, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে৷’’ তাঁর ধারণা, কাবুলে সক্রিয় এই দুই জঙ্গি সংগঠনের সদস্যরাই হয়তো বিস্ফোরণের ঘটনায় জড়িয়ে থাকতে পারে। এর আগে গত ৭ আগস্ট কাবুলে বোমা বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে৷ আফগানের নিরাপত্তারক্ষীদের লক্ষ্য করে বোমা ছোঁড়া হয়৷ ওই নাশকতায় প্রাণ গিয়েছিল কমপক্ষে ১৪ জনের। সেই ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই আবারও বিয়েবাড়িতে বোমা বিস্ফোরণের ঘটনায় আতঙ্কিত প্রায় সকলেই৷

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*