উন্নত স্যানিটেশনের অভাবে বাংলাদেশে ৬ কাটি মানুষ স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ২৭ অক্টোবর, বৃহস্পতিবার: উন্নত স্যানিটেশনের অভাবে বাংলাদেশে এখনো অন্তত ছয় কোটি মানুষ প্রচন্ড স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে রয়েছে।এছাড়া বিশ্বায়নের এই যুগে এখনো দেশের দেড় লাখেরও বেশি মানুষ খোলা জায়গায় মলত্যাগ করে।1
আজ বৃহস্পতিবার সকালে বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্রে ‘টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা-৬ অর্জনে বেসরকারি উদ্যোক্তাদের ভূমিকা:প্রেক্ষিত বাংলাদেশ’ শীর্ষক সেমিনারের আয়োজন করে বাংলাদেশ ওয়াশ এ্যালায়েন্স।এই সেমিনারে এসব তথ্য উঠে এসেছে।
সেমিনারে দেশের উন্নত স্যানিটেশন সুবিধাবঞ্চিত ছয় কোটি চব্বিশ লাখ মানুষের অধিকার নিশ্চিত করতে বাংলাদেশ সরকারের প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করা হয়।সুবিধা বঞ্চিত মানুষের হার মোট জনসংখ্যার শতকরা ৩৯ শতাংশ।
গত একযুগে স্যানিটেশন নিয়ে বাংলাদেশ সরকারের উদ্যোগের কথা উল্লেখ করে বক্তরা বলেন, বাংলাদেশ সরকারের স্যানিটেশন বিষয়ক বহুমুখী উদ্যোগের পর এখন মাত্র ৪০ ভাগ পরিবার পয়ঃনিষ্কাশনে পানি ও সাবান ব্যবহার করছে।যা প্রত্যাশা পূরণের জন্য যথেষ্ট নয়।তাই সরকারের সঙ্গে বেসরকারি উদ্যোক্তাদের এগিয়ে আসতে হবে।
সেমিনারে সভাপতিত্ব করেন আয়োজন সংগঠনের চেয়ারপারসন ড. খায়রুল ইসলাম। এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এমএ মান্নান।
বিশেষ অতিথি ছিলেন সাংসদ নূরজাহান বেগম মুক্তা, নদারল্যান্ডস্থ ওয়াশ অ্যালায়েন্স ইন্টারন্যাশনালের সারা আহরারি, ডর্প চেয়ারম্যান মো: আজহার আলী তালুকদার, সমাজসেবা অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক খান আবুল বাশার প্রমুখ। অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এমএ মান্নান বলেন,সরকারের পাশাপাশি বেসরকারি উদ্যোক্তাদেরকেও উন্নত স্যানিটেশন ব্যবস্থা গড়তে এগিয়ে আসতে হবে। এতে করে লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের গতি আরো বেগবান হবে।
সাংসদ নূরজাহান বেগম মুক্তা বলেন, বিদেশীরা আমাদের সবকিছু করে দেবে একথা ভাবলে বুঝতে হবে আমরা বোকার স্বর্গে বাস করছি। ইতিপূর্বেও আমরা এমডিজি অর্জনের ক্ষেত্রে এ ব্যাপারটি লক্ষ্য করেছি।তাই আসুন আমরা নিজেদের অবস্থা উন্নয়নের জন্য সর্বোচ্চ চেষ্ট করি। এ ক্ষেত্রে বিদেশীরা সহযোগিতা করলে ভালো। না করলে প্রত্যাশা নেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*