উখিয়ায় খোলা আকাশের নীচে শিক্ষার্থীদের পাঠদান

কক্সবাজার প্রতিনিধি : কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলার পালং আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের ঝুঁকিপূর্ণ একাডেমিক ভবনে ফাটল সৃষ্টি হলে ছাত্র-ছাত্রীরা দিক-বেদিক ছোটাছুটি সহ চরম আতংক বিরাজ করছে। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে শিক্ষকরা শিক্ষার্থীদেরকে পাঠদান দিচ্ছে। আবার ভবন ধ্বসেPic-ukhiya1-29-04-2015 পড়ার আশঙ্কায় খোলা আকাশের নিচে ক্লাস চালু করেছে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। গতকাল মঙ্গলবার সকাল ১০ টায় প্রচন্ড শব্দ হয়ে একাডেমিক ভবনে ফাটল সৃষ্টি হয়ে কংক্রিটের আঘাতে অন্তত ২০ জন শিক্ষার্থী আঘাত প্রাপ্ত হয়েছে বলে ছাত্র-ছাত্রীরা জানিয়েছেন। জানা যায়, সারাদেশে গত দু’দিন ধরে প্রবল ভূমিকম্প অনুভূত হয়। উক্ত ভূমিকম্পের কারণে উখিয়া উপজেলার পালং আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবন ও বিজ্ঞান ভবনে ফাটল দেখা দেয়। ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র বোরহান উদ্দিন, হারুন রশিদ, মো: ফারুক ও আবিদ জানান, মঙ্গলবার সকাল ১০ টায় ক্লাস চলাকালীন সময়ে বিকট শব্দ হয়ে ভবন ফাটলের সৃষ্টি হয়। এক পর্যায়ে সিমেন্টযুক্ত কংক্রিট আমাদের মাথার উপর পড়লে জীবনের ভয়ে আমরা ক্লাস থেকে দ্রুত বের হয়ে নিরাপদ আশ্রয় নিই। শিক্ষার্থী তহিদ, আবদুল্লাহ, জোবাইর, সোহেল ও জনি বড়–য়া সাংবাদিকদের বলেন, যেভাবে ভবনের ফাটল সৃষ্টি হয়েছে যে কোন সময় ভবন ধ্বসে পড়ার আশঙ্কা রয়েছে। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নুরুল হক জানান, পালং আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ে বর্তমানে প্রায় ১২ শ ছাত্র-ছাত্রী রয়েছে। ২০০১ সালে নির্মিত দ্বিতল বিশিষ্ট একাডেমিক ভবন ও বিজ্ঞান ভবন দু’টি ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। সারা দেশে ভূমিকম্প শুরু হলে পালং আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের ঝুঁকিপূর্ণ ওই দু’টি ভবনে ফাটল সৃষ্টি হয়। গতকাল মঙ্গলবার ক্লাস চলাকালীন সময়ে হঠাৎ বিকট শব্দ হয়ে ফাটল সৃষ্টিসহ ছাত্র-ছাত্রীদের মাথার সিমেন্টযুক্ত কংক্রিট পড়লে পুরো বিদ্যালয়ে আতংকের সৃষ্টি হয়। এ সময় ছাত্র-ছাত্রীরা দ্রুত ক্লাস থেকে বের হয়ে নিরাপদ আশ্রয় গ্রহণ করায় বড় ধরনের ক্ষয়ক্ষতি থেকে রক্ষা পাওয়া যায়। তবে ভবনের ফাটল থেকে ছিটকে পড়া কংক্রিটের আঘাতে ষষ্ঠ শ্রেণির অন্তত ২০ শিক্ষার্থী আঘাত প্রাপ্ত হয়। পরে ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় ফাটল ধরা ভবন থেকে শিক্ষার্থীদেরকে নিয়ে এসে খোলা আকাশের গাছের নিচে পাঠদান করা হয়। তিনি আরও বলেন, গত ৪ এপ্রিল শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর কক্সবাজারের নির্বাহী প্রকৌশলী বরাবরে ঝুঁকিপূর্ণ একাডেমিক ভবন ও বিজ্ঞান ভবন পরিদর্শন করে পরিত্যক্ত ঘোষনা করার জন্য লিখিতভাবে অভিযোগ করা হলেও এ পর্যন্ত কেউ পরিদর্শনে আসেনি। মঙ্গলবার সকাল ১১ টায় এ প্রতিবেদক খবর পেয়ে পালং আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের ফাটল ধরা একাডেমিক ভবন পরিদর্শনে গেলে ছাত্র-ছাত্রীরা চোখে-মুখে আতংকের ছাপ পরিলক্ষিত হয়। তারা ক্লাস নিতে ভয় করছে। শিক্ষকরাও ঝুঁকি নিতে চাচ্ছে না। দু’টি ভবনেই চারিদিকে ফাটল আর ফাটল। কেবল ধ্বসে পড়াটাই বাকি। বিদ্যালয়ের আঙ্গিনায় শিক্ষার্থীরা ক্লাস নিচ্ছে। বৃষ্টি হলে কি করে ক্লাস চলবে তা নিয়েও অজানা আতংক। স্থানীয় মেম্বার আকতার কামাল চৌধুরী, মেম্বার নেজাম উদ্দিন দুলাল, শফিকুল ইসলাম চৌধুরী ভূলু ও আলমগীর হাসান সহ বেশ কয়েকজন সচেতন অভিভাবক ভবনের ফাটলের খবর পেয়ে বিদ্যালয়ে ছুটে এসেছেন। বর্তমানে পালং আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের দু’টি ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে ফাটল সৃষ্টি হওয়ায় শিক্ষা কার্যক্রম ও পাঠদান চরম বিঘœ হওয়ার আশংকা দেখা দিয়েছে। অভিভাবক, শিক্ষার্থী ও শিক্ষকমন্ডলী এ ব্যাপারে জেলা প্রশাসকসহ সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*