ইউএসএআইডি-এর কমিউনিটি ভিত্তিক পুষ্টি উন্নয়ন প্রকল্পের অবহিতকরণ কর্মশালা

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ৩০ জুলাই ২০১৭, রবিবার: ইউএসএআইডি এর অর্থায়নে এবং কারিতাস বাংলাদেশ কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন ইউএসএআইডি-এর কমিউনিটি ভিত্তিক পুষ্টি উন্নয়ন প্রকল্পের অবহিতকরণ কর্মশালা আজ ৩০ জুলাই ২০১৭ তারিখে হুয়াইট হল সম্মেলন কক্ষ, মাইজদী নোয়াখালীতে অনুষ্ঠিত হয়। পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তর, নোয়াখালী জেলার উপ-পরিচালক জনাব মোস্তফা কামালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কর্মশালায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নোয়াখালী জেলার সিভিল সার্জন জনাব ডা. মোহাম্মদ শামছুর রহমান। বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন সুবর্ণ চর উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ এএইচএম খাইরুল আনাম চৌধুরী সেলিম, হাতিয়া উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান আনোয়ারুল আজিম, উপজেলা নির্বাহী অফিসার, সুবর্ণচর মোহাম্মদ হারুনুর রশিদ কারিতাস বাংলাদেশের সহকারী নির্বাহী পরিচালক (প্রোগ্রামস্) মি. রঞ্জন ফ্রান্সিস রোজারিও এবং আঞ্চলিক পরিচালক কারিতাস চট্টগ্রাম মি. জেমস্ গোমেজ। এছাড়াও কর্মশালায় নোয়াখালী জেলার বিভিন্ন উপজেলার উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা, উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি, সাংবাদিকসহ বিভিন্ন শ্রেণীপেশার সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি বর্গ অংশগ্রহণ করেন। প্রধান অতিথি তাঁর বক্তব্যে বলেন, অপুষ্টি কোন দরিদ্র মানুষের সমস্যা নয় এটি ধনী পরিবারেরও সমস্যা। বর্তমানে দরিদ্র পরিবারের সন্তানরা যেমন অপুষ্টিতে ভুগছে তেমনি ধনীর শিশুরও কোন না কোনভাবে অপুষ্টির শিকার হচ্ছে তাই পুষ্টি বিষয়ক সচেতনতা একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। তিনি আরও বলেন, অপুষ্টির সমস্যা সমাধান করা সরকারের দায়িত্ব হলেও এ ক্ষেত্রে এনজিওদের ভূমিকাও গুরুত্বপূর্ণ। সমাপনী বক্তব্যে সভাপতি বলেন, বাল্য বিবাহ এবং ঘনঘন সন্তান প্রসবও অপুষ্টির অন্যতম কারণ আর দেশব্যাপী পুষ্টি সমস্যা সমাধানে সকলকে একযোগে কাজ করতে হবে।
উল্লেখ্য, ইউএসএআইডি-এর কমিউনিটি ভিত্তিক পুষ্টি উন্নয়ন প্রকল্পটি গর্ভবতী মহিলা, শিশুকে স্তন্যদানকারী মা এবং জন্ম থেকে ২ বছর বয়সী শিশুর অপুষ্টি হ্রাসকরণে ভোলা জেলার সব কয়টি (৭টি) উপজেলায় (ভোলা সদর, দৌলতখান, বোরহানউদ্দিন, তজুমুদ্দিন, লালমোহন, চরফ্যাশন ও মনপুরা), নোয়াখালী জেলার ২টি উপজেলায় (সুবর্ণচর ও হাতিয়া) এবং লক্ষ্মীপুর জেলার ২টি উপজেলায় (রামগতি ও কমলনগর) বাস্তবায়িত হবে। ইউএসএআইডি-এর কমিউনিটি ভিত্তিক পুষ্টি উন্নয়ন প্রকল্পটির লক্ষ্য হলো উক্ত কর্মএলাকায় বিশেষভাবে গর্ভবতী মহিলা, শিশুকে স্তন্যদানকারী মা এবং জন্ম থেকে ২ বছর বয়সী শিশুর অপুষ্টি হ্রাস করা। প্রকল্পের প্রধান কার্যক্রমগুলো হলো-পারিবারিক পর্যায়ে গর্ভবতী মহিলা, শিশুকে স্তন্যদানকারী মা এবং পরিবারের অন্যান্য সদস্য যেমন বাবা, শ্বশুড়/শ্বাশুড়ীদের মা ও শিশু পুষ্টির উপর কাউন্সেলিং, কিশোরীদের স্বাস্থ্য ও পুষ্টি শিক্ষা প্রদান, এবং পয়নিষ্কাশনের উপর শিক্ষা প্রদান এর মাধ্যমে মা ও শিশুর প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্য ও পুষ্টি সেবা নিশ্চিত করা। পাশপাশি কমিউনিটি পর্যায়ে বিভিন্ন স্বাস্থ্য ও পুষ্টি সেবাপ্রদানকারী সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠান বিশেষ করে কমিউনিটি ক্লিনিক, ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের সেবাপ্রদানকারী সহ কমিউনিটি ক্লিনিক সার্পোট গ্রুপ (ঈঝএ) এবং লোকাল সার্ভিস প্রোভাইডারদের দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য প্রয়োজনীয় পুষ্টি প্রশিক্ষণ প্রদান করবে। এই কার্যক্রম কমিউনিটি ক্লিনিক, ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের সমন্বয়ে বাস্তবায়ন করা হবে। কর্মশালায় অংশগ্রহণকারী প্রধান অতিথি, বিশেষ অতিথিসহ সকল অংশগ্রহণকারী প্রকল্পটি সুষ্ঠু বাস্তবায়নে সার্বিক সহযোগিতা প্রধানের আশ্বাস প্রদান করেন।

Leave a Reply

%d bloggers like this: