আহত সিলেট কলেজের ছাত্রী খাদিজার বা-পা নড়াচড়া করা যাচ্ছে না

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ২৫ অক্টোবর, মঙ্গলবার: ছাত্রলীগ নেতা বদরুলের চাপাতির কোপে গুরুতর আহত সিলেট সরকারি মহিলা কলেজের ছাত্রী খাদিজা আক্তার নার্গিসের বা-পা নড়াচড়া করা যাচ্ছে না। রাজধানীর 1স্কয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন খাদিজার ডান-পায়ের মুভমেন্ট স্বাভাবিক। চিকিৎসকদের বরাত দিয়ে স্কয়ার হাসপাতালের কাস্টমার সার্ভিসের কর্মকর্তা কাজী মাহবুবা বলেন, ‘খাদিজার অবস্থা এখন ভালো। বাম দিকে একটু সমস্যা থাকলেও ওর বয়স কম হওয়ায় চিকিৎসরা খুবই আশাবাদী। রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালের ষষ্ঠ তলার নিউরো সার্জারী বিভাগে ডা. এ.এম রেজাউস সাত্তারের অধীনে নিবিড় পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন রয়েছেন তিনি।’
খাদিজার সবশেষ অবস্থা জানতে তাঁর চাচা আবদুল কুদ্দুসের সঙ্গে কথা হয় মুঠোফোনে। তিনি ঢাকাটাইমসকে বলেন, খাদিজার ডান পাশ নড়াচড়া করছে বেশকিছু দিন ধরে। কিন্তু বাম পাশে কোন অনুভুতি নেই। খাওয়া দাওয়া করছেন নাকে নল দিয়ে।
গত ৩ অক্টোবর পরীক্ষা শেষে বাসায় ফেরার সময় সিলেট সরকারী মহিলা কলেজের ছাত্রী খাদিজা আক্তার নার্গিসকে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে আহত করে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগ নেতা বদরুল আলম। পরে স্থানীয় জনতা পিটুনি দিয়ে তাকে পুলিশে সোপর্দ করেন। সেখানে হাফিজুর রহমান নামের আরেক ছাত্রলীগ কর্মী খাদিজা আক্তার নার্গিসকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে সিলেটের ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন।
পরের দিন সকালে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে আনা হয়। এ ঘটনায় আদালতের বদরুল আলম স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। আদালতে দাঁড়িয়ে তিনি বলেছেন, প্রেমে সাড়া না দেওয়ার কারনে তার মাথা খারাপ হয়ে যায় এবং ক্ষোভ থেকে হত্যার উদ্দেশ্যে সে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে খাদিজাকে হত্যার চেষ্টা করে। স্কয়ার হাসপাতালের চিকিৎসকরা প্রথম বলেছিলেন, খাদিজার বেঁচে থাকার সম্ভাবনা ৫ থেকে ১০ ভাগ।
খাদিজার স্বাস্থ্যের উন্নতির ব্যাপারে জানতে চাইলে আজ সোমবার বিকালে তিনি মুঠোফোনে বলেন, খাদিজার অবস্থা ভাল। তবে তাঁর বাম পাশটা প্যারালাইজড হয়ে আছে। এই পায়ে অনুভূতি ফিরে আসতে একটু সময় লাগবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*