আমরা চাই বাংলাদেশকে এগিয়ে নিতে: নৌমন্ত্রী শাজাহান খান

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ১২ নভেম্বর: ন্যাশনাল মেরিটাইম ইনস্টিটিউটের (এনএমআই) ১৫ তম এবং মাদারিপুর শাখার চতুর্থ ব্যাচের পাসিং আউট কুচকাওয়াজ উপলক্ষ্যে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। নৌমন্ত্রী শাজাহান খান প্রধান অতিথির বক্তব্যে বলেন, আমরা চাই বাংলাদেশকে এগিয়ে নিতে। তাই দেশের সামগ্রিক উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে সরকার। এরই মধ্যে অর্থনৈতিকভাবে দেশ এগিয়ে গেছে। রিজার্ভ রেড়েছে, রফতানি আয় বেড়েছে। shajahan-khan
তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ নিয়ে বিশ্বের মানুষ এখন ভাবছে। আমরা অর্থনৈতিকভাবে যেভাবে এগিয়ে গেছি তা বিস্ময়কর।’ ১৫ তম ব্যাচে ১৫৭ জন প্রশিক্ষনার্থী প্রশিক্ষণ শেষ করে তাদের কর্মজীবনে পদার্পন করতে যাচ্ছে বলে অনুষ্ঠানে জানানো হয়।
বর্তমানে দেশি-বিদেশি অনেক বাণিজ্যিক জাহাজ ন্যাশনাল মেরিটাইম ইনস্টিটিউট ও মেরিন একাডেমির কর্মকর্তারা পরিচালনা করছেন উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, তারাই আমাদের জাতীয় পতাকাবাহী বাণিজ্যিক জাহাজগুলোকে বিশ্বের বন্দরে নিয়ে যাচ্ছে। এর মাধ্যমে বহির্বিশ্বে আমাদের দেশের দূত হিসেবে কাজ করছে তারা।
শিপিং সেক্টরে দক্ষ মানব সম্পদ সৃষ্টির লক্ষ্যে ট্রেনিং ইনস্টিটিউটসহ সংশ্লিষ্ট সংস্থা কাজ করে যাচ্ছে জানিয়ে তিনি বলেন, এরই ধারাবাহিকতায় রেটিংসদের জন্য রেসিডেন্সিয়াল ও রেজিমেন্টাল প্রশিক্ষণের একমাত্র সরকারি নৌ-শিক্ষা ও প্রশিক্ষণ প্রতিষ্ঠান এনএমআই সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা নিয়ে কাজ করছে।
অনুষ্ঠানে এনএমআই অধ্যক্ষ ক্যাপ্টেন ফয়সাল আজিম জানান, স্থায়ীভাবে প্রতিষ্ঠার পর ১৯৯৫ সাল থেকে ১৪টি ব্যাচে এ পর্যন্ত মোট ২ হাজার ৪৭৩ জন প্রশিক্ষণার্থী প্রি-সী রেটিং প্রশিক্ষণ নিয়েছেন। এরমধ্যে ১ হাজার ৯১৮ জন নবীন নাবিক দেশি-বিদেশি জাহাজে কর্মরত। এছাড়া ১৯৯৫ থেকে সেপ্টেম্বর ২০১৫ পর্যন্ত বিভিন্ন সহায়ক কোর্সে ১৪ হাজার ৪৯৭ জন রেটিং ও জাহাজী কর্মকর্তাদেরকে কোর্স করানো হয়েছে।
শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, এখানে যে পরিশ্রম করে কঠোর নিয়মের মধ্যে থেকে কোর্স সম্পন্ন করেছ, তা একজন নাবিক হিসাবে জাহাজের চাকুরীর ক্ষেত্রেও তার প্রতিফলন ঘটবে।
তিনি বলেন, জাহাজে নিয়মতান্ত্রিকতা, শৃঙ্খলা মেনে চলবে এবং কোম্পানীর প্রতি অনুগত থেকে সুন্দর ও সুষ্ঠুভাবে তোমাদের দায়িত্ব পালন করবে। তোমাদের কর্মকান্ড, দক্ষতা, আনুগত্য ও সততার উপর নির্ভর করবে তোমাদের এবং তোমাদের উত্তরসূরী নাবিকদের চাকুরী প্রাপ্তির ভবিষ্যৎ।
তিনি জানান, ন্যাশনাল মেরিটাইম ইন্সটিটিউটের প্রশিক্ষণের গুণগতমান, আন্তর্জাতিক নৌ-সংস্থা (আইএমও) এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নের মেরিটাইম সেফিট এজেন্সী (ইএমএসএ) স্বীকৃতি প্রাপ্ত। এছাড়া ২০১৪ সাল থেকে এ ইন্সটিটিউট আন্তর্জাতিক মানদন্ডের স্বীকৃতি হিসেবে (ডিএনভি-জিএল) থেকে এআইএসও ৯০০১:২০০৮ এবং ব্যুরো ভেরিটাসের ওয়ার্কশপ প্রক্রিউরম্যান্ট স্কীল (ডব্লিউপিএস) সার্টিফিকেট অর্জন করেছে।
ইন্সটিটিউটের ফিটার-কাম-ওয়েল্ডার প্রশিক্ষণার্থীরা ৬-জি সার্টিফিকেট অর্জন করছে। ফলে জাহাজে চাকরীর পাশাপাশি দেশে-বিদেশে আন্তর্জাতিক মানের জাহাজ নির্মাণ (শীপ ইয়ার্ডে) প্রতিষ্ঠানে কাজের সুযোগ পাচ্ছেন।
অনুষ্ঠানে বিভিন্ন বিভাগে সেরা প্রশিক্ষণার্থীদের হাতে ক্রেস্ট তুলে দেন প্রধান অতিথি নৌমন্ত্রী শাজাহান খান। বিভিন্ন বিভাগে সেরা নির্বাচিতরা হলেন ডেক বিভাগে মো. নোমান ছিদ্দিক, ইঞ্জিন বিভাগে সানোয়ার হোসেন, ফিটার কাম ওয়েল্ডারে মো. গাউছুর রহমান রানা, কুক বিভাগে আব্দুল হালিম আল মামুন, স্টুয়ার্ড বিভাগে মাহাবুবুল আলম টিপু। নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়ে সৌজন্যে দেওয়া অল রাউন্ড রেটিং স্বর্ণ পদক গ্রহণ করেন মো. গাউছুর রহমান রানা।
অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে জাতীয় নদী রক্ষা কমিশনের চেয়ারম্যান মো.আতাহারুল ইসলাম, চট্টগ্রাম বন্দর চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল নিজামউদ্দিন আহমেদ, সমুদ্র পরিবহন অধিদফতরের মহাপরিচালক কমোডর এম জাকিউর রহমান ভূঁইয়া, নৌ বাণিজ্য অধিদফতরের প্রিন্সিপাল অফিসার শফিকুল ইসলাম, নাবিক ও প্রবাসী শ্রমিক কল্যাণ পরিদফতরের পরিচালক নুরুল আলম নিজামি, শিপিং মাস্টার আলী আম্বীয়া প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

%d bloggers like this: