অলরেডরা ২-১ ব্যবধানে হেরে টুর্নামেন্ট থেকে বিদায়

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ০৮ জানুয়ারী ২০১৯ ইংরেজী, মঙ্গলবার: এমন হবে জানলে হয়ত দ্বিতীয় সারির দল নামাতেন না ইয়ুর্গেন ক্লপ! এফএ কাপে উলভারহ্যাম্পটনের বিপক্ষে ম্যাচকে সামনে রেখে মূল একাদশের নয় জনকে বিশ্রামে রাখেন তিনি। অভিষেক ঘটান তিনজনের। কিন্তু প্রতিপক্ষের মাঠে দাঁড়াতে পারেনি সালাহ-মানে বিহীন লিভারপুল। ২-১ ব্যবধানে হেরে টুর্নামেন্টের তৃতীয় রাউন্ড থেকে বিদায় নিয়েছে অলরেডরা। এ নিয়ে চলতি মৌসুমে প্রথমবার টানা দ্বিতীয় হার দেখল লিভারপুল। আগের ম্যাচে প্রিমিয়ার লিগে ম্যানচেস্টার সিটির কাছে একই ব্যবধানে হেরে যায় তারা। ম্যাচ শেষে নিজেদের হারের কারণ নিয়ে ক্লপ বলেছেন, ‘এই পরাজয়ের দায় আমারই। আমার কিছু সিদ্ধান্ত দলের বিপক্ষে গেছে। আসলে ম্যানসিটির বিপক্ষে ম্যাচের পর আমাদের চারজন গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড় অসুস্থ হয়ে পড়ে। আমি তাই অন্যদের ওপর ভরসা করেছিলাম। কিন্তু আমার পরিকল্পনা কাজে আসেনি। ওরা ভালো খেলতে পারেনি।’মূল তারকাদের অবর্তমানে মলিনেক্স স্টেডিয়ামে ‘অচেনা’ লিভারপুলকেই দেখা গেছে। রক্ষণভাগে দেয়ান লভরেনের সঙ্গে স্বীকৃত ডিফেন্ডার বলতে ছিলেন আলবার্তো মরেনো। কিন্তু চোটের কারণে ম্যাচের ষষ্ঠ মিনিটেই মাঠ ছাড়তে হয় লভরেনকে। এতে রক্ষণভাগ কিছুটা দুর্বল হয়ে পড়ে লিভারপুলের। এরপর জেমস মিলনারের ভুলের সুযোগ কাজে লাগিয়ে ৩৮তম মিনিটে রাউল হিমেনেজের গোলে এগিয়ে যায় উলভস।
আক্রমণভাগে সালাহ-মানের জায়গায় খেলতে নামা ডিভগ অরিগি আর ড্যানিয়েল স্টারিজ প্রথমার্ধে মাত্র একবার নিজেদের মাঝে বল আদান-প্রদান করতে পেরেছেন। প্রতিপক্ষের ডি-বক্সে তাদের খোঁজেই পাওয়া যায়নি। স্টারিজ ছিলেন একেবারে বোতলবন্দি। বাধ্য হয়ে শেষের দিকে তাকে তুলে নেন ক্লপ। দ্বিতীয়ার্ধে অবশ্য ছন্দ ফিরে পান অরিগি। ৫১তম মিনিটে লিভারপুলের সমতাসূচক গোলটি করেন তিনি। অরিগির গোলের মিনিট চারেক বাদেই আবারও এগিয়ে যায় উলভস। প্রায় ৩০ গজ দূর থেকে জালে বল জড়ান রুবেন নেভেস। এরপর জর্দান শাকিরির একটি প্রচেষ্টা ব্যর্থ হয়ে যায় পোস্টে লেগে। লিভারপুলও ম্যাচটা হেরে যায়। এর আগে ২০১৬-১৭ মৌসুমেও উলভসের কাছে হেরে এফএ কাপের শেষ ষোলো থেকে বিদায় নিয়েছিল অলরেডরা। লিভারপুল ছাড়া প্রিমিয়ার লিগের বড় দলগুলোর প্রায় সবাই এফএ কাপের শেষ ষোলোর টিকিট কেটেছে। শেষ ষোলোর ড্র অনুযায়ী এবার আর্সেনাল মুখোমুখি হবে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের। বর্তমান চ্যাম্পিয়ন চেলসির প্রতিপক্ষ শেফিল্ড ওয়েনেসডে। ম্যানচেস্টার সিটি খেলবে বার্নলির বিপক্ষে আর টটেনহাম হটস্পার মুখোমুখি হবে ক্রিস্টাল প্যালেসের।

Leave a Reply

%d bloggers like this: