অতীতের মতো গৌরবময় ভূমিকা পালন করতে হবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে: কামাল হোসেন

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ২৯ ডিসেম্বর ২০১৮ ইংরেজী, শনিবার: রবিবারের ভোট উৎসবের হবে কি না এ নিয়ে সংশয়ে থাকার কথা জানিয়েও ভোটারদের সকাল সকাল কেন্দ্রে যাওয়ার আহ্বান এসেছে বিএনপির নতুন জোট ঐক্যফ্রন্টের পক্ষ থেকে। ফ্রন্টের প্রধান নেতা কামাল হোসেন বলেছেন, সংশয় থাকলেও ভোটার উপস্থিতি বেশি হলে দুর্বৃত্তরা সবাই পালিয়ে যাবে। ভোটের আগেরদিন বিকালে রাজধানীতে জোটের পক্ষ থেকে এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন গণফোরাম প্রধান। ২০১৪ সালের দশম সংসদ নির্বাচনে আসেনি আওয়ামী লীগের প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি-জামায়াত ভোট। নির্বাচনকালীন তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা নিয়ে আন্দোলনে থাকলেও এবার ভোটে এসেছে তারা। আর ১৩ অক্টোবর ঐক্যফ্রন্ট নামে জোট গঠনের সঙ্গে এই সিদ্ধান্তেরও যোগসূত্র আছে বলে ধারণা করা হয়। এবার ভোটের প্রচার চালানোর সময় সমান সুযোগ না পাওয়ার অভিযোগ করেছে বিএনপি জোট। নানা সময় ভোট থেকে সরে আসার গুঞ্জনও ছড়িয়েছে। তবে আগের দিনও জোটের পক্ষ থেকে জানানো হয়, তারা ভোটের মাঠ ছাড়বে না। গত কয়েক দিন ধরেই কামাল হোসেন এবং বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের পক্ষ থেকে ভোটারদেরকে কেন্দ্রে যেতে বারবার আহ্বান জানানো হয়েছে। ভোটারদের যে এই নির্বাচন নিয়ে ব্যাপক উৎসাহ আছে, সেটি রাজধানী ফাঁকা হয়ে যাওয়ার মধ্য দিয়েই বোঝা গেছে। তবে কামাল হোসেন বলেন, ‘ভোটকে কেন্দ্র করে উৎসবের আবহ থাকার কথা ছিল কিন্তু মানুষের মনে এখনও সংশয় সন্দেহ রয়েছে।’ অবশ্য কেন্দ্রে ভোটার উপস্থিত হলে দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যাবে বলেও মনে করেন ঐক্যফ্রন্ট নেতা। বলেছেন, ‘তোমরা যারা নতুন ভোটার তারা সকাল সকাল ভোট দিতে যাবে। মনে রাখবে, যদি তুমি ভয় পাও তবে তুমি শেষ, যদি তুমি ঘুরে দাঁড়াও তবেই বাংলাদেশ।’ প্রিজাইডিং কর্মকর্তা ও পোলিং এজেন্টদের নিরপেক্ষভাবে কাজ করার আহ্বান জানিয়ে কামাল হোসেন বলেন, ‘আপনারা যারা ভোট গ্রহণের দায়িত্বে আছেন, আপনারা সম্মানিত মানুষ, আপনার উপর যে দায়িত্ব তা সততার সাথে পালন করবেন। এতে আপনার সম্মান বাড়বে ভোটারদের মুখে হাসির উপরে নির্ভর করছে আপনার দায়িত্ব পালনের সফলতা ও তৃপ্তি।’ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে গণফোরাম নেতা বলেন, ‘সেনাবাহিনী, নৌবাহিনী, পুলিশ, বিজিবি, র‌্যাব, আনসারসহ যারা আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণের সাথে জড়িতদের প্রতি অনুরোধ, আপনারা অতীতের মতো গৌরবময় ভূমিকা পালন করুন। বিশ্ব শান্তি রক্ষায় আপনাদের ভূমিকা প্রশংসিত হয়েছে। সেই প্রশংসার ফলে সারাবিশ্বে আপনাদের সুযোগ বেড়েছে। কোন অবস্থাতেই যাতে তা ব্যাহত না হয় সে ব্যাপারে আপনারা সতর্ক থাকবেন।’ ‘নির্বাচন কমিশনের কর্মকর্তা-কর্মচারী, রিটার্নিং অফিসার, সহকারী রিটার্নি অফিসার যারা আছেন আপনারা জনগণের ভোটাধিকার নিশ্চিত করুন। আপনি যদি কারও অধিকার হরণ করেন তাহলে মনে রাখবেন আপনার মা বাবা স্ত্রী সন্তানের অধিকার হরণ করছেন।’ প্রবাসীদের প্রতিও বার্তা আছে ড. কামালের। বলেন, ‘আপনারা যারা ভোট দিতে পারেন না, আপনারা আপনাদের স্বজনদের ফোন করে ভোট দিতে যেতে বলুন। তারা যদি ভোট দিতে পারেন সে আনন্দের অংশীদার আপনি হবেন।’ বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, মোস্তফা জামান মন্টু, সুব্রত চৌধুরী প্রমুখ সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

%d bloggers like this: